চাটমোহরপাবনা

প্রতিভার সাক্ষরে চাটমোহরকে প্রদীপ্ত করায় শীর্ষে যারা

প্রতিভার সাক্ষরে চাটমোহরকে প্রদীপ্ত করায় শীর্ষে যারা

গত ৩১শে মে তে প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে কৃতকার্য ও জিপিএ-৫ প্রাপ্ত সকলকে অভিনন্দন৷ ব্যর্থদের জন্য নিজেকে ভেঙে গড়ার আশাবাদ ধরে রাখবার অনুরোধ।
ফলাফলের ভিত্তিতে গরীব অথচ মেধাবী শিক্ষার্থীদের তুলে ধরার মাধ্যমে তাদের অনুপ্রাণিত করার বাহবাযোগ্য প্রয়াসের জন্য শ্রদ্ধেয় সংবাদকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আনন্দের সাথে প্রকাশ করছি এসএসসি পরীক্ষা-২০২০ এ নম্বরের ভিত্তিতে চাটমোহরের সেরা দশজনের ফলাফলঃ-

১. তাসনিয়া তাবাসসুম আঁকা
ডিএ জয়েন উদ্দিন স্কুল
প্রাপ্ত নম্বর ১২৩৬
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৫.০৭

২. মিফতাহুল জান্নাত মোহনা
রাজা চন্দ্রনাথ ও বাবু শম্ভুনাথ সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়।
প্রাপ্ত নম্বর ১২৩৪
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৪.৯৩

৩. খন্দকার তাসফিয়া ইসলাম পিউলী
ডিএ জয়েন উদ্দিন স্কুল
প্রাপ্ত নম্বর ১২৩৩
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৪.৮৪

৪. সিরাজুম মনিরা তামান্না
চাটমোহর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
প্রাপ্ত নম্বর ১২৩০
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৪.৩১

৫. মোছাঃ অর্পা খাতুন
সেন্ট রীটাস উচ্চ বিদ্যালয়
প্রাপ্ত নম্বর ১২২৪
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৪.১৫

৬. মুক্তাদির আহমেদ অর্ক
সেন্ট রীটাস উচ্চ বিদ্যালয়
প্রাপ্ত নম্বর ১২২৩
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৪.০৬

৭. ইমরুল কায়েস জ্বীম
ডিএ জয়েন উদ্দিন স্কুল
প্রাপ্ত নম্বর ১২২০
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৩.৮৪

৮. অভিষেক ভট্টাচার্য নিঝুম
অরবিটল লিংক স্কুল অ্যান্ড কলেজ
প্রাপ্ত নম্বর ১২১৭
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৩.৬১

৯. সৈয়দ শাফাক বিন নুর রুপ
সেন্ট রীটাস উচ্চ বিদ্যালয়
প্রাপ্ত নম্বর ১২১৫
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৩.৪৬

১০. ইশরাত জাহান ইশা
চাটমোহর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়
প্রাপ্ত নম্বর ১২১৩
প্রতি বিষয়ে গড় মার্ক ৯৩.৩০

কিছু বিষয়ে ভেবে দেখবার অনুরোধঃ-
প্রিয়জন/প্রিয়মুখ, কোনো খ্যাতনামা ব্যক্তির সন্তানের ভালো ফলাফলে সংবাদের হেডলাইন হওয়া নিয়ে বিন্দুমাত্র বিরোধ নেই। কিন্তু প্রতিভা দিয়ে যারা চাটমোহরকে সম্মানিত করছে বা আগামীতে করে যাবে, তাদের কীর্তিকে উদ্ভাসিত করবার মতো আন্তরিক পরিবেশ বিগত কয়েক বছরে সৃষ্টি করতে না পারাটা বিরাট ব্যর্থতা।
পরিতাপ জাগে, যখন দেখি বাকি এক হাজার জনের মতোই স্বাভাবিক ফলাফল কিন্তু বিশেষ মর্যাদায় তার খবর তুমুল আলোড়িত, অথচ চাটমোহরকে গৌরব এনে দেওয়ার মতো সাফল্য যারা আনলো, তাদের কথা সকল পরিসংখ্যানেই অনুপস্থিত।
পরিতাপ তখনও জাগে, যখন দেখি সমান্তরাল ফলাফল সত্ত্বেও এক প্রতিষ্ঠানের সংবাদ সংবাদকর্মীদেরই বদান্যতায় আলোচনার শীর্ষে, অন্যটার হাভাত-জোভাত।
বিশেষভাবে বলতে হচ্ছে, সংবাদকর্মীর সাথে সম্পৃক্ততা থাকুক বা না থাকুক, জনপ্রিয় ব্যক্তির উত্তরাধিকারী হোক বা না হোক, মেধাবী-আলোকপাতের সংবাদ হওয়া উচিৎ সার্বজনীন। আমি এযাবৎকালের ছাত্রজীবনে কখনো এ পরিবেশটা দেখিনি।

সংবাদগত এ বৈষম্যের প্রভাব কোনো শিক্ষার্থীর মানসিকতায় আঘাত করার পূর্বেই এর অবসান হোক- এই কামনা করি।

আমাদের গর্বিত করবার জন্য ধন্যবাদ আমাদের অনুজদের। মেধার সাক্ষর ছড়িয়ে যাক, শুভকামনা সকলের জন্য।

বিঃদ্রঃ শিক্ষার্থীভিত্তিক সাংস্কৃতিক সংগঠন “স্টুডেন্টস’ থিয়েটার আর্ট” এর পক্ষ থেকে এসকল কৃতি শিক্ষার্থীদের বাড়িতে শীঘ্রই উৎসাহমূলক পুরষ্কার পৌঁছে যাবে।

সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ুন

এই ধরনের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close