অন্যান্যপাবনাপাবনা সদর

পাবনা জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্যের বিরুদ্ধে আত্মসাৎ এর অভিযোগ

পাবনা জেলা পরিষদের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য ও বেসরকারি এনজিও “দিগন্ত সমাজ কল্যাণ সংস্থা” এর নির্বাহী পরিচালক শামসুন্নাহার মুক্তা জেলা পরিষদ হতে ৯ লক্ষ টাকা বরাদ্দ পেয়ে নতুন রিক্সা ও সেলাই মেশিনের পরিবর্তে পুরাতন মরিচা রিক্সা ও সেলাই মেশিন বিতারন করেন।

রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার বরাবর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পাবনা জেলা পরিষদ থেকে ৯ লাখ টাকা বরাদ্দ করে। বরাদ্দকৃত টাকা দিয়ে ১৯ই মে শামসুন্নাহার মুক্তা হতদরিদ্রদের মাঝে রিক্সা ও সেলাই মেশিন বিতরন করেন।সেখানে অতিথিবৃন্দ ৫ টি রিক্সা ও ৫ টি সেলাই মেশিন বিতরন করে চলে যায় এবং তারপরে শামসুন্নাহার মুক্তা অপর ১৫ টি রিক্সার বদলে ৯ টি পুরাতন ভাংগা, মরিচা পড়া পুরাতন রিক্সা বিতারন করেন এবং ২৮ টি নতুন সেলাই মেশিনের বদলে ১১ টি পুরাতন সেলাই মেশিন বিতরন করেন।তবে সেখানে ২০ টি রিক্সা ও ৩০ টি সেলাই মেশিন বিতরন করার কথা ছিল।

উক্ত পরিস্থিতিতে এলাকাবাশী প্রতিবাদ করলে তিনি বলেন,নিলে নাও না নিলে চলে যাও।

জেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, শামসুন্নাহার মুক্তা জেলা পরিষদের অফিসে ২০ টি রিক্সা যার প্রতিটির মূল্য ১৫ হাজার টাকা ও ৩৩ টি সেলাই মেশিন যার প্রতিটির মূল্য ৯ হাজার ৯০ টাকার বিল ভাউসার অফিসে জমা দেন।

অনুসন্ধান করে জানা যায়,প্রতিটি নতুন রিক্সার দাম সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা ও পুরাতন রিক্সার দাম ৪ হাজার টাকা ও নতুন সেলাই মেশিনের দাম ৭ হাজার টাকা এবং পুরাতন মেশিনের দাম ২ হাজার টাকার বেশি না।রিক্সাগুলোকে রং করে, নামপ্লেট বলদে, নতুন কভার দিয়ে বিতারন করেছেন তবে সেগুলো দেখলেই বোঝা যায় যে রিক্সাগুলো পুরাতন।

উক্ত কাজে ২ লক্ষ টাকা ব্যায় করেন আর অবশিষ্ট ৭ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এই ব্যাপারে পাবনা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আতাউর রহমান বলেন,ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হলে আইনানুসারে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ুন

এই ধরনের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close