চাটমোহর

চাটমোহরে ইয়াবা ও হেরোইনের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে ব্যাথানাশক ট্যাবলেট

চাটমোহরের ফার্মেসি গুলো থেকে প্রেস্কিপশন(ব্যবস্থাপত্র) ছাড়াই অবাধে বিক্রি হচ্ছে ইয়াবা ও হেরোইনের বিকল্প ব্যাথানাশক ট্যাবলেট। মাদক সেবীরা মাদকের বিকল্প হিসেবে এসব ব্যথানাশক ট্যাবলেট ব্যবহার করে থাকে। ইয়াবা ও হেরোইনের চেয়ে দামে সস্তা ও সহজলভ্য হওয়াতে ক্রমান্বয়ে এসব ঔষধের চাহিদা মাদক সেবনকারীদের মাঝে ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

বাজারে অনেক ধরনের ব্যাথানাশক ট্যাবলেট পাওয়া গেলেও সব ধরনের ব্যথানাশক ট্যাবলেটের ব্যাপক চাহিদা নেই। নির্দিষ্ট কিছু কোম্পানির ক্যাফেইন দিয়ে তৈরি ট্যাবলেট এর চাহিদা মাদক সেবীদের মধ্যে লক্ষ্য করা যায়। অতিমাত্রায় ক্যাফেইন থাকায় এসব ওষুধ সেবনের ফলে ব্যথার পাশাপাশি ঘুম ও ইয়াবা-হেরোইনের নেশার চাহিদা মেটায়।

সরেজমিনে দেখা যায়, চাটমোহর উপজেলার অধিকাংশ ফার্মেসিতে এসব ঔষধ প্রেস্কিপশন ছাড়াই অবাধে বিক্রি করা হচ্ছে। ঔষধের প্রকৃত মূল্য ২০ টাকা হলেও ফার্মেসি মালিকরা তা বিক্রি করছে ৮০-১২০ টাকা। অধিক মুনাফা লাভের আশায় ফার্মেসি মালিকেরা এসকল ঔষধ মাদক সেবনকারীদের মাঝে সরবরাহ করছে।

মাদকসেবীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, কিছু কোম্পানির ব্যাথানাশক ঔষধ সেবন করলে হিরোইনের স্বাদ পাওয়া যায়। কিছু ঔষধ সেবনের ফলে ইয়াবার মতো নেশা হয়।

চাটমোহরের সন্তান ডাঃ এস এম আতিকুল আলম বলেন, হ্যা এ বিষয়টা আমিও শুনেছি। কিছু ব্যাথানাশক ঔষুধ এখন কিছু যুবক নেশার জন্য ব্যাবহার করছে। এসকল ঔষুধ সহজলভ্য হওয়ায় বিকল্প নেশাদ্রব্য হিসাবে ব্যাবহার হচ্ছে। এসকল ওষুধ ব্যবহারের ফলে বিভিন্ন প্বার্শপ্রতিক্রিয়া যেমন বমি ভাব, বমি, মাথা ঘোরা, চুলকানি, মুখ শুকিয়ে যাওয়া, অতিরিক্ত ঘাম, অনিদ্রা, অবসাদ, ক্লান্তি ইত্যাদি দেখা দেয়।

মাদকের বিকল্প এসকল ঔষধ সরাসরি মাদক দ্রব্য হিসেবে স্বীকৃত না হওয়ার কারনে মাদক সেবীদের পাশাপাশি কিশোর-তরুণেরা নির্ভয়ে ব্যবহার করে ধীরে ধীরে তারাও নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়েছে।

• বৃহত্তর জনস্বার্থে ঔষধের নাম ও কোম্পানির নাম গোপন রাখা হয়েছে।

সম্পূর্ণ লেখাটি পড়ুন

এই ধরনের সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close